২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ বুধবার || ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম:
বন্ধ হচ্ছে করোনা লাইভ বুলেটিন, তথ্য মিলবে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ১২ দিনেও সন্ধান মেলেনি স্বর্ণ ব্যবসায়ীর টাঙ্গাইল এর বিশেষ অভিযানে ০৬ (ছয়) বোতল বিদেশী মদ উদ্ধারসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ভেঙে পড়লো টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার কাশিল ইউনিয়নের দাপনাজোর ব্রিজ টাঙ্গাইলে ডাক্তার পরিচয়ে রোগী দেখেন ক্লিনিক মালিক ধরা পড়লো বহুল আলোচিত মধুপুরের চার হত্যাকান্ডের প্রধান আসামী সাগর আজ দেশের ৯ অঞ্চলে ঝড়বৃষ্টি হতে পারে বাড়ছে পেঁয়াজের ঝাঁজ ম্যানসিটিকে হারিয়ে ফাইনালে আর্সেনাল ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে টাঙ্গাইল শহর রক্ষা বাঁধ পরিচ্ছন্নতাকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগ এসপির বিরুদ্ধে টাঙ্গাইলে চিকিৎসক-শিক্ষার্থীসহ আরও ১৪ জন করোনায় আক্রান্ত একই পরিবারের ৪ জনকে গলাকেটে হত্যা, আটক ৩ ব্রিজ ভেঙে সিমেন্টবোঝাই ট্রাক বিলে, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন লাল বাদশার দাম ৮ লাখ টাকা করোনায় আক্রান্ত এমপি জোয়াহের ঘরকে ঠান্ডা রাখার কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি বিনামূল্যে ফেসবুক ব্যবহারের প্যাকেজে বিটিআরসির নিষেধাজ্ঞা টাঙ্গাইলে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে বৃক্ষের চারা রোপণ কর্মসূচি কার্যক্রমের উদ্বোধন গলার কাঁটা ৩শ ফুট মির্জাপুরের বংশাই রোড
 

মির্জাপুর উপজেলার মেজর ফারুক আর নেই

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে কর্মরত কাজী ফারুক হোসেন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

তার বাড়ি মির্জাপুর উপজেলার বানাইল ইউনিয়নের বাংগলা গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের কাজী আলতাফ হোসেনের ছেলে।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকার সিএমএইচে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। শনিবার বাদ জোহর নিজ গ্রামে সামাজিক কবরস্থানে সামরিক মর্যাদায় তার মরদেহ দাফন করা হয়েছে।

জানা গেছে, তিনি দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন। গুরুতর অস্থায় তাকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে তিনি মারা যান।

মৃত্যুকালে তিনি মা, স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়ে, দুই ভাই ও দুই বোনসহ বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

শনিবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা থেকে সেনাবাহিনীর একটি হেলিকপ্টারযোগে কুমুদিনী হাসপাতালের মাঠে তার লাশ আনা হয়। সেখান থেকে সেনাবাহিনীর অ্যাম্বুলেন্সযোগে লাশ গ্রামের বাড়ি বাংগলা নেয়া হয়। বাদ জোহর তার নামাজে জানাজা শেষে সেনাবাহিনীর একটি দল তার কফিনে গার্ড অব অনার ও সামরিক মর্যাদা দেয়া হয়।

পরে বাংগলা গ্রামের কেন্দ্রীয় কবরস্থানে তার মরদেহ দাফন করা হয়। এ সময় ঘাটাইল সেনানিবাসের মেজর সালাহ উদ্দিন ও ক্যাপ্টেন মেরাজসহ সেনাবাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। এদিকে, মেজর ফারুকের মরদেহ এলাকায় পৌঁছলে গ্রামবাসী কান্নায় ভেঙে পড়েন।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো. একাব্বর হোসেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক সাংসদ ফজলুর রহমান ফারুক, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মীর এনায়েত হোসেন মন্টু তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

মন্তব্য করুন: