২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ বুধবার || ৮ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিরোনাম:
বন্ধ হচ্ছে করোনা লাইভ বুলেটিন, তথ্য মিলবে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ১২ দিনেও সন্ধান মেলেনি স্বর্ণ ব্যবসায়ীর টাঙ্গাইল এর বিশেষ অভিযানে ০৬ (ছয়) বোতল বিদেশী মদ উদ্ধারসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ভেঙে পড়লো টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার কাশিল ইউনিয়নের দাপনাজোর ব্রিজ টাঙ্গাইলে ডাক্তার পরিচয়ে রোগী দেখেন ক্লিনিক মালিক ধরা পড়লো বহুল আলোচিত মধুপুরের চার হত্যাকান্ডের প্রধান আসামী সাগর আজ দেশের ৯ অঞ্চলে ঝড়বৃষ্টি হতে পারে বাড়ছে পেঁয়াজের ঝাঁজ ম্যানসিটিকে হারিয়ে ফাইনালে আর্সেনাল ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে টাঙ্গাইল শহর রক্ষা বাঁধ পরিচ্ছন্নতাকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগ এসপির বিরুদ্ধে টাঙ্গাইলে চিকিৎসক-শিক্ষার্থীসহ আরও ১৪ জন করোনায় আক্রান্ত একই পরিবারের ৪ জনকে গলাকেটে হত্যা, আটক ৩ ব্রিজ ভেঙে সিমেন্টবোঝাই ট্রাক বিলে, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন লাল বাদশার দাম ৮ লাখ টাকা করোনায় আক্রান্ত এমপি জোয়াহের ঘরকে ঠান্ডা রাখার কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি বিনামূল্যে ফেসবুক ব্যবহারের প্যাকেজে বিটিআরসির নিষেধাজ্ঞা টাঙ্গাইলে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে বৃক্ষের চারা রোপণ কর্মসূচি কার্যক্রমের উদ্বোধন গলার কাঁটা ৩শ ফুট মির্জাপুরের বংশাই রোড
 

গাজীপুর সিটিকে লকডাউনের দাবি জানালেন মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনকে লকডাউনের দাবি জানিয়েছেন সিটি মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম। বুধবার (৮ এপ্রিল) বিকেলে সিটি কর্পোরেশনের বোর্ড বাজার আঞ্চলিক অফিসে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে তিনি এ দাবি জানান।

এর আগে মেয়র জাহাঙ্গীর মঙ্গলবার (৭ এপ্রিল) নিজ উদ্যোগে নগরীর ৫৭টি ওয়ার্ড লকডাউন ঘোষণা করেছিলেন। এখন তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে সরকারের কাছে লকডাউন দাবি করলেন।

মেয়র জাহাঙ্গীর বলেন, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন একটি শ্রমিক অধ্যুষিত এলাকা। এই এলাকায় শ্রমিকরা কারখানা বন্ধের ঘোষণায় বাড়ি ফিরে গিয়েছিলেন। পরে আবার অনেকে গাজীপুরে ফিরে এসেছেন। তাই গাজীপুরের লাখ লাখ মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা চিন্তা করে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন এবং ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা যেন লকডাউন করা হয় সেটা সরকারের কাছে দাবি জানাই। এটি যাচাই-বাছাই করে সরকার যেন দ্রুত সিদ্ধান্ত দেয়। তা না হলে মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্য ঝুঁকি থেকেই যাবে।

তিনি আরও বলেন, সিটি কর্পোরেশনের সকল কাউন্সিলকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া যাতে কেউ বাসা থেকে বের না হয় এবং অযথা কোনো স্থানে আড্ডায় জড়ো না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে একজন একজন করে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস কেনাকাটা করবে। অনেক মানুষ যাতে কোনো দোকানে এক সঙ্গে জড়ো হতে না পারে সে জন্য সকল মানুষকে কাউন্সিলররা অনুরোধ করে বুঝিয়ে বলবে। মাত্র ১৫ দিন যদি আমরা যার যার বাসায় অবস্থান করতে পারি তাহলে আমাদের অনেক ঝুঁকি কমে যাবে।

মেয়র বলেন, এই সময়ে যারা অসহায়, দুস্থ, গরিব তাদের বাসায় স্থানীয় কাউন্সিলররা খাদ্য পৌঁছে দিবে। ত্রাণ বিতরণের ক্ষেত্রে যেন কেউ কোনো প্রকার স্বজনপ্রীতি না করতে পারে সেদিকে আমরা খেয়াল রাখছি। ত্রাণ বিতরণের জন্য একটু সময় লাখছে, কিন্তু পর্যায়ক্রমে আমাদের তালিকাভুক্ত সকলের বাসায় খাবার পৌঁছে যাবে।

অপরদিকে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতের লক্ষে মহাসড়কে একাধিক চেক পোস্ট বসিয়ে কাজ করছেন পুলিশ, র্যাব ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা। জেলা প্রশাসনের একাধিক ভ্রাম্যমাণ আদালতের টিম বাজার ও জনসমাগম এলাকায় অভিযান পরিচালনা করছে। দুপুর ১২টার পর সব ধরনের দোকানপাট বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

মন্তব্য করুন: